Login
ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার আগে জেনে নিন

ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার আগে জেনে নিন

ওয়েব ডেভলোপিং যারা নতুন শিখছেন বা যারা নতুন ওয়েব সাইট বানাতে চান, সর্ব প্রথমে তারা যে সমস্যায় পরেন তা হলো ভাল ওয়েব হোস্টিং কোথায় পাওয়া যাবে। যাদের কাছে থেকে হোস্টিং কিনছি বা ডোমেইন কিনছি তারা ভাল সাপোর্ট দেবে কিনা। অথবা কম খরচের উপর কিভাবে চালিয়ে দেওয়া যায়।  জেনে নেই ডোমেইন বা হোস্টিং কি ?

আমরা যদি আমাদের ওয়েব সাইটকে একটা বাড়ির সাথে তুলনা করি তাহলে হোস্টিংকে বলতে পারি সেই বাড়ির প্লট বা জমি। যেখানে বাড়িটা তৈরী করা হবে। আর ডোমেইন হলো সেই বাড়ির ঠিকানা। যেমন আমার বাড়ি বগুড়াতে। আমার বাড়ির ঠিকানা যদি আপনি জানেন তাহলে সেই ঠিকানা ধরে খুব সহজেই আমার বাড়িতে আপনি চলে আসতে পারবেন, ঠিক তেমনি একটা ওয়েব সাইট এর ঠিকানা যদি আপনি জানেন তবে একই ভাবে ব্রাওজারের এড্রেসবারে ঐ ঠিকানা প্রেস করে আপনি ঐ ওয়েব সাইটে চলে যেতে পারবেন। এখন কথা হলো আপনি বাড়ি বানানোর আগে এমন জমি কিনলেন যেটা আগে হয়তো ডোবা বা নালা ছিল। পেয়ে গেলেনও খুব কম দামে। এমন জায়গায় কি আপনার বাড়ি খুব বেশি টেকসই হবে?

আসুন জেনে নেই কি কি প্রবলেম ফেস করতে হতে পারে এরকম সস্তা ডোমেইন ও হোস্টিং এর ক্ষেত্রেঃ

১। অনেক সময় সাইট ডাউন থাকে। সাইটে ঢুকতে গেলে লোড হতেই থাকে। যদিও এই ডাউনটাইম হয়তো খুব বেশি সময় এর জন্য নয়। তবে এটা আপনার সাইটের SEO এর জন্য ব্যাড ইফেক্ট ফেলবে। অনেক ভিজিটর হারাবেন। ভিজিটর আপনার সাইটে ঢুকতে গিয়ে এরকম ডাউন অবস্থা পেলে পরবর্তীতে আপনার সাইটে ঢুকতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।
২। আইপি জনিত সমস্যা হইতে পারে। এটা সস্তা হোস্টিং এর জন্য খুবই কমন সমস্যা। এই ধরনের হোস্টিং এ সাইট হোস্ট করা হলে অনেক আই পি থেকেই সাইট লোড হবে না। ফলস্রুতিতে কি হতে পারে বুঝতেই পারছেন।
৩। আর একটা সমস্যা হতে পারে, সেটা হলো যেকোন সময় কোনরুপ কারন ছাড়াই আপনার সাইট ডিলিট হয়ে যেতে পারে। আপনার অনেক কষ্ট করে বানানো সাইটের যদি এই হাল হয় তবে তো ফ্রী হোস্টিং ই অনেক ভাল
ডোমেইন এর ক্ষেত্রেও কি সমস্যা হতে পারে ?
হ্যা, ডোমেনেও সমস্যা হয়। সর্ব প্রথম সমস্যা হতে পারে DNS নিয়ে। আই পি জনিত সমস্যাও হতে পারে।


ফ্রী হোস্টিং এ সমস্যা কোথায় ? কেনো ফ্রী হোস্টিং ব্যাবহার করবেন না ?
১। প্রফেশনাল ওয়েব সাইট তৈরীর ক্ষেত্রে ফ্রী হোস্টিং কখনো কার্যকরী সলুউশন হতে পারে না।
ফ্রী হোস্টিং এও আপনার পছন্দের ওয়েবসাইট কোন কারন ছাড়ায় ডিলিট করে দিতে পারে। যখন তাদের সিপিইউ বেশি যাবে তখন প্রায় নিশ্চিত হতে পারেন আপনার একাউন্ট বা সাইটও যাবে।
২।আর একটা সমস্যা খুব ই কমন, আপনার সাইটে ভিজিটর একটু বেশি আসা শুরু হলেই সাইট স্লো হয়ে যাবে। অর্থাৎ সাইট লোড হতে অনেক বেশি সময় লাগবে। এই ধরনের সাইটে ভিজিটর আর আসতে চাইবে না পরবর্তিতে।
তবে প্রাক্টিস করার জন্য ফ্রী হোস্টিং ইউজ করতে পারেন। তবে এই ক্ষেত্রেও আমার একটা কথা আছে। ফ্রীতে সাধারনত কেউ সি প্যানেল দেয় না। সেই ক্ষেত্রে আপনি সি প্যানেলের ইন্টারফেসের সাথে অপরিচিত থেকেই যাবেন। সেই সাথে সি প্যানেলের সুবিধা থাকে বঞ্চিত হবেন।

আসুন এবার জেনে নেই ডোমেইন হোস্টিং কেনার সময় কি কি জিনিস মাথায় রাখবেন ?
যাদের কাছে থেকে আপনি হোস্টিং বা ডোমেইন নিচ্ছেন তাদের পুর্বের রেকর্ড কেমন। তাদের লাইভ সাপোর্ট কেমন। অনেকেই ২৪/৭ লাইভ সাপোর্ট দেবার প্রমিস করলেও পরবর্তিতে তা পাওয়া যায় না। সস্তা ডোমেইন হোস্টিং থেকে কিছুটা দূরে থাকারই চেস্টা করবেন। যারা আপনাকে সারাবছর সার্ভিস দেবে তারা আপনাকে স্বস্তায় ডোমেইন বা হোস্টিং দিতে চাইবে না।

তাহলে কি সস্তা মানেই খারাপ। কখনোই না। অনেক বড় বড় কম্পানি অনেক উপলক্ষে বিভিন্ন অফার দেয়। তবে একটা জিনিস বিশেষ ভাবে লক্ষনীয়, এটা কিন্তু রেগুলার প্রাইস নয়। অফারে শুধু প্রথম বছরেই হয়তো কিছু লেস পাবেন, পবর্তিতে আপনাকে রেগুলার প্রাইসেই রিনিউ করতে হবে। বর্তমানে বাংলাদেশেও বেশ কিছু ভাল ডোমেইন ও হোস্টিং প্রভাইডার হয়েছে। যারা কোন রুপ অভিযোগ ছাড়ায় ডোমেইন ও হোস্টিং প্রভাইড করে যাচ্ছে। মার্লাক্স টেকনোলজিস বাংলাদেশ কোন রকম অভিযোগ ছাড়ায় নির্বিঘ্নে ডোমেইন এবং হোস্টিং দিয়ে আসছে। যেখানে পাবেন ২৪ ঘন্টা লাইভ সাপোর্ট সুবিধা সহ ফ্রি এস এস এল সুবিধা।
পরিশেষে এটুকুই বলব, ডোমেইন ও হোস্টিং কেনার আগে যেখান থেকে কিনতে যাচ্ছেন তার সম্পর্কে একটু ভাল মত খোজ খবর নিয়ে নেবেন। অভিজ্ঞ যারা আছে তাদের কাছে থেকেও জেনে নিন। কারণ আপনি যখন ডোমেইন হোস্টিং কিনে সাইট বানাবেন সেখানে আপনার যথেস্ট পরিশ্রম আছে ঐ সাইটের পেছনে। তাই যে কোন সময় এই সাইট হারানো কখনোই আমাদের কাম্য নয়।

এই জিনিসগুলো আমাদের সকলকেই শিখতে হবে। শেখার অনেক ধরণ আছে। কেউ দেখে শেখে , কেউ ঠেকে শেখে। আপনারা না হয় দেখেই শিখুন। সবাইকেই ঠেকে শিখতে হবে এর কোন মানে নাই।

About the Author

Leave a Reply